ঢাকা, ৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
shodagor.com

আমার ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণ

প্রকাশিত: সোমবার, এপ্রিল ৫, ২০২১ ৪:৫৬ অপরাহ্ণ  

| ডেস্ক ইডিটর, বর্ণা

আমার ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণ

যান্ত্রিক কোলাহলের বাইরে সাভারের কোল ঘেঁষে গড়ে উঠেছিলো ছোট এক সপ্ন। সেই সপ্নের সিঁড়ি এত মসৃণ, যে তা বেয়ে বহু ফুল ফুটছে দূর দূর দিগন্তে। প্রকৃতি সাঁজে ছয় ঋতুতে গ্রীষ্ম, বর্ষা, শরৎ, হেমন্ত, শীত, বসন্ত। তবে এই স্বপ্ন সাঁজে তিন ঋতুতে- স্প্রিং, সামার এবং ফল।

ইংরেজি ভাষায় ঋতুগুলির বর্ননা দিলাম কারন কিছু ইংরেজি কখনোও কখনও সুন্দর শুনায়, কথায় বলে সাউন্ডস গুড। সাউন্ডস গুড বলতে গিয়ে আরেকটি কথা মনে নাড়া দিয়ে উঠলো সেটা হলো “ড্যাফোডিল”।

shodagor.com

শীতের প্রায় দিনই প্রকৃতি এক ধূসর চাদরে মুখ ঢেকে থাকে, আর সেই দীর্ঘ শীতের সময়ে মাটির নীচে প্রস্তুতি নেয়, বসন্ত প্রকৃতির আশ্চর্য এক উপহার – ড্যাফোডিল।শীত যখন যাই যাই করে, মাটি ভেদ করে তখনই উঁকি দেয় এই উজ্জ্বল হলুদ ফুলের ড্যাফোডিল গাছ।

ইউরোপে ড্যাফোডিল নিয়ে আসে বসন্তের আগমন বার্তা। তারপরেই ইউরোপের চারিদিকে শুরু হয়ে যায় নানা ফুলের রঙের খেলা। বসন্ত দিনে হালকা বাতাসে মাথা দোলাতে দোলাতে যেন হাতছানি দেয় অপূর্ব হলুদ ড্যাফোডিলরা – যেন বলে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে এসো, প্রকৃতির কাছে ফিরে এসো। প্রকৃতির সাথে মনুষ্য আত্মার যোগসূত্র ঘটায় এই ড্যাফোডিল ফুলের নামে এক ফুলবাগান -” ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।”

জানুয়ারির মাঝামাঝি। পার্মানেন্ট ক্যাম্পাসে এই সময়ে সকালবেলা খাগান থেকে ইউনিভার্সিটির রাস্তা একদম কুয়াশাচ্ছন্ন থাকে। ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণে হু হু করে ঠান্ডা বাতাসের ঘনঘটা। ইউনিভার্সিটির প্রধান ফটক দিয়ে সোজা একটু সামনে আগালেই বিস্তৃত মাঠ। সেদিক চোখ যেতেই মনে হবে এ যেন সবুজের ছড়াছড়ি এবং সেই সবুজের বুকে চন্দ্রমল্লিকা ফুটে রয়েছে দলবদ্ধ হয়ে।

ক্যাম্পাসের নতুন মুখদের আমি চন্দ্রমল্লিকা বলেছি কারন এই সময়টাতে ক্যাম্পাস জুড়ে থাকে নতুনত্ব। নতুন নতুন মুখ ছোটাছুটি করে বেড়ায় তাদের দেখতে আমার কাছে ঠিক চন্দ্রমল্লিকার মত লাগে।

অন্যান্য সময়ের থেকে জানুয়ারীর দিকে ক্যাম্পাস একটু বেশি ই সাজে। বসন্তের আগে যেমন ড্যাফোডিল ফুল ফোটার প্রস্তুতি চলে ঠিক সেরকম। মাঠের চারপাশ, পাইথন স্ট্রিট( এবি-২ থেকে এবি-৩ তে যাবার বৃক্ষ সমৃদ্ধ পথ), কাঁঠালতলা, বনমায়া, শেওলিনের খোঁপ (এবি-১ এ একাউন্টস অফিসের দক্ষিণ পাশে) যেন প্রান জুড়ানোর এক লীলাক্ষেত্র হয়ে উঠে। আহা সে কি সুন্দর, সুন্দর বললে খুব নিত্যান্তভাবে সংগায়িত করা হবে৷ চারটি একাডেমিক ভবন এবং ছয়টি ভবন (আবাসিক হল) মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে চারপাশে।

উঁচুতে দাঁড়িয়ে এই প্রকৃতিকে পাহারা দিছে এমনটাই মনে হয়। এডমিশন অফিসের পাশে ক্যাম্পাসের দক্ষিণ-পশ্চিম কোণে অমর একুশের শহিদগণের প্রতি শ্রদ্ধা নিরূপণ করার জন্য দাঁড়িয়ে আছে শহিদ মিনার। বনমায়ার ঠিক পশ্চিমে ক্যাম্পাসের ঠিক মাঝামাঝি দক্ষিণে স্বাধীনতা সম্মেলন কেন্দ্র। আহা প্রকৃতির মাঝে কিছুটা কংক্রিটের ছোঁয়ায় এ যেন মন হারানো এক রুপের ছোয়া।

জুন মাস শুরু হয়েছে বৃষ্টিতে বাইরে বেরোনো যায়না। চারিদিকে শুধু কাঁদা আর কাঁদা। গ্রিন গার্ডেনে বসে কানের মধ্যে ইয়ারফোন গুঁজে গানে মনোযোগ দিচ্ছিলাম আর ঝিরিঝিরি করে বৃষ্টি দেখছিলাম। এখান থেকে বৃষ্টি খুব সুন্দর উপভোগ করা যায়।

গ্রিন গার্ডেনের চারপাশ গ্লাস দিয়ে আচ্ছাদিত কিনা! এখানে নাকি আজ সিংগাড়া হয়নি। আহা এই বৃষ্টিতে গরম সিংগাড়া ছাড়া ঠিক জমে না। ছাতা নিয়ে উঠে পরলাম। পাইথন স্ট্রিটের আঁকাবাঁকা পথ ধরে বনমায়ার দিকে হাঁটা শুরু করলাম৷ হাতের বাঁ পাশে ফুড কোর্ট। সেখানে গেলে বেশ আড্ডা জমে। ফুড কোর্ট তৈরি হওয়ার পর আজকাল ক্যাম্পাসের দক্ষিণ-পূর্ব কোণের ক্যাফেটেরিয়া তে খুব একটা যাওয়া হয়না।

সবার কাছে জন্মদিন শব্দটা খুব সুখের। ইউনিভার্সিটির জন্মদিন!! তবে এটা শুনতে কেমন একটা লাগলেও এই দিনের আগমনের আয়োজন চলে বহু সময় ধরে। ২০০২ সালের ২৪ জানুয়ারি থেকে একরাঁশ সপ্ন বুনন শুরু হয়। ২৪ জানুয়ারি ঘিরে কয়েকদিন চলে এলাহি আয়োজন।

শুধু কি জন্মদিন! একের পর এক অনুষ্ঠানে মুখরিত থাকে ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণ। স্বরস্বতী পূজা থেকে শুরু করে পহেলা বৈশাখ, পহেলা ফাল্গুন, র‍্যাগ ডে নানা ধরনের আয়োজনে বিস্তৃত ও প্রানোচ্ছ্বল থাকে ক্যাম্পাস আঙিনা।

সময় ০৫ঃ০০, চারিদিকে কেমন একটা হৈ হৈ শব্দ। প্রথমে সবাই ভেবে বসবে কি হয়েছে। কিন্তু এই কোলাহল বাড়ি ফেরার। একাডেমিক ভবন ১ এর পিছন থেকে পারি জমায় সবুজ রঙের কিছু বাস। কেউ টিকিট নিচ্ছে কেউ বাসে ওঠার তোড়জোড় নিয়ে ছুটে এগোচ্ছে। কি এক কোলাহলময় দৃশ্য। আহা! কবি জীবনানন্দ দাশের দেখানো পথে আমারো হারিয়ে যেতে ইচ্ছে হয়। বলতে ইচ্ছে হয়- “আবার আসিব ফিরে এই সবুজের নীড়ে।”

লেখা- গীতা দেবী হালদার
আইন বিভাগ, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস ও মতামত কলামে লিখতে পারেন আপনিও – pbn.news24@gmail.com ইমেইল করুন  

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ