১৫ই জুলাই, ২০২০ ইং, বুধবার

কর্মহীন হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে সিরাজদিখানের বেত শিল্পীরা

আপডেট: মে ১৫, ২০২০

| মহসিন রেজা, মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সিরাজদিখান উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের নয়ানগর গ্রামের প্রায় ৬০ থেকে ৭০ টি পরিবার কর্মহীন হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। অন্য দিকে প্রশাসনিক নিষেধাজ্ঞার কারণে যানচলাচল বন্ধ থাকায় বেতের বানানো জিনিসপত্র ডেলিভারী দিতে না পারায় চরম খাদ্য সংকটে ভুগছেন তারা। দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে রপ্তানির জন্য চাহিদা অনুযায়ী বেতের পন্য তৈরি করা হলেও করোনার কারণে সেগুলো ঘরেই রেখে দিতে হচ্ছে তাদের। এতে করে চরম আর্থিক ক্ষতির সম্মুক্ষিন হতে হচ্ছে তাদের। দেশে বেতের তৈরি পণ্যের একাংশের চাহিদা মিটিয়ে বৈদেশিক মুদ্রা উপার্জনকারী বেতশীল্পিদের মানবেতর জীবনযাপন দৃষ্টিগোচর হয়নি কারো। সরকারী কিংবা ব্যাক্তিগত কারোরই কোন সাহায্য সহযোগিতা পাননি তারা।

বেতশীল্পির এক কর্মচারী বুরুজেন দাস বলেন, করোনা ভাইরাসের জন্য মালিক অর্ডারের মাল ডেলিভারী দিতে পারছে না। তাই আমাদের বেতন ও দিতে পারছে না। আমাদের কাজও নেই। সরকারের কানো সাহায্য ও আমরা পাইনি। অনেক দিন আগে মেম্বার আমাদের ভোটার আইডি নিয়েছে কিন্তু এরপর আর কোনো খবর নাই।

উপজেলার মনিপারার বেত শিল্পী যতীন কুমার দাস জানান, বৈশাখ মাসকে সামনে রেখে হরেক রকম বেতের জিনিসপত্র বানিয়ে ছিলেন। করোনা ভাইরাসের কারণে এবারের বৈশাখী উৎসব না হওয়ায় তাদের বানানো পন্য ঘরেই পরে রয়েছে। ইতালি, জার্মানে রপ্তানি করার অর্ডার ছিলো তাও পাঠাতে না পেরে কর্মচারিদের বেতন দিতে পারছেন না তারা। সরকারি কোনো সাহায্য সহযোগিতা না পেলে না খেয়েই মারা যাবেন।