ঢাকা, ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কেমন কাটছে হোম কোয়ারেন্টাইনের দিনগুল?

প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৩০, ২০২০ ২:১৪ অপরাহ্ণ  

| pbn22

বিশ্বব্যাপী মহামারী আকার ধারণ করেছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। ভাইরাসটি ইতোমধ্যে ১৯৯টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে আক্রান্ত হয়েছে সোয়া ৭ লাখেরও বেশি মানুষ। মৃত্যু হয়ে প্রায় ৩৪ হাজার মানুষের।

একমাসের ও বেশি সময় হয়ে গেছে দেশের প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, কলেজ, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্ববিদ্যালয়সহ সকল ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে আছে। সাথে সাথে বন্ধ হয়ে আছে দেশের সকল ধরনের আর্থিক, সামাজিক, ধর্মীয়, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান সহ সবকিছুই। শিক্ষার্থীরা রয়েছে ঘরবন্দী।
এসব বিষয়ে দেশের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মতামত নিয়েছে পিবিএন২৪। লিখেছেন- রুহুল আমিন

ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভ’র শিক্ষার্থী মোঃ মুহিতুল ইসলাম বলেন, ‘পুরো বিশ্ব অস্বস্থিতে বিরাজ করছে, কিছুটা স্বস্থিও রয়েছে যেমন পরিবারের সকল সদস্যদের এমন মিলন,এতোটা সময় এত কাছাকাছি থাকা হয়ে উঠেনি অাগে কখনো, জীবনের ব্যস্ততায়,বাড়ির সবাইকে কাছে পাওয়া অমূল্য রতনের মতন, ইন্টারনেট ও এই প্রযুক্তির যুগে পুরোনো যে ভালো অভ্যাসটি হারিয়ে ফেলেছিলাম,
সেটি হলো বইপড়া। তাই এখন আবার সেই অভ্যাসটি ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা করছি। জ্ঞানের জগৎ সমৃদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি সুন্দরভাবে কেটে যাচ্ছে সময়গুলো। পাশাপাশি ডিজিটাল আর্ট, শরীরচর্চা, মুভি সিরিজ দেখা এবং বাসার ছোট-ছোট কাজে সহায়তা করছি। এভাবেই কাটছে কোয়ারেন্টাইন এর দিনগুলি!’

তিনি আরো বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমাদের সব চেয়ে বড় কাজ দেশকে বাঁচানো। আর দেশ বাঁচাতে হলে আগে নিজেকে বাঁচাতে হবে। নিজে তখনই বাঁচতে পারবো যখন আমরা সবাই ঘরে থাকবো। অনুরোধ করবো সবাইকে বাসায় থাকুন সুস্থ থাকুন। দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুক পৃথিবী এই কামনা।’

মোঃ মুহিতুল ইসলাম,
ব্যাচেলর অব বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশন(বিবিএ)
ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভ(ইউডা)।

কোভিড-১৯ যা করোনা ভাইরাস নামে পরিচিত – সাম্প্রতিক সময়ে গণমাধ্যমের শিরোনামে প্রাধান্য বিস্তার করেছে। বর্তমানে সারাবিশ্বের বিভিন্ন দেশে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। সাধারণ সতর্কতা অবলম্বন করে আমরা এই ভাইরাসটির সংক্রমণ ও বিস্তারের ঝুঁকি কমিয়ে আনতে পারি। করোনা ভাইরাস থেকে নিরাপদ থাকুন। শ্বাসতন্ত্রের অন্যান্য অসুস্থতার মতো এই ভাইরাসের ক্ষেত্রেও সর্দি, কাশি, গলা ব্যথা এবং জ্বরসহ হালকা লক্ষণ দেখা দিতে পারে। কিছু মানুষের জন্য এই ভাইরাসের সংক্রমণ মারাত্মক হতে পারে। আমরা জানি বিভিন্ন রোগের বিস্তার এবং ভাইরাস সীমিত পর্যায়ে রাখতে মেডিক্যাল মাস্ক সাহায্য করে থাকে। করোনা ভাইরাস ও তার ব্যতিক্রম নয়। করোনা ভাইরাস বিস্তার সীমিত পর্যায়ে রাখতে মেডিক্যাল মাস্ক ব্যবহার করুন। তবে এটার ব্যবহারই এককভাবে সংক্রমণ হ্রাস করতে যথেষ্ঠ নয়। নিয়মিত হাত ধোয়া, মাছ-মাংশ ভালোভাবে রান্না করে খাওয়া, অসুস্থ পশু/পাখির নিকটে না আসা, হাঁচি-কাশির সময় টিস্যু বা কাপড় ব্যবহার করা, হাত না ধুয়ে চোখ-মুখ-নাক স্পর্শ করা এবং সম্ভাব্য সংক্রমিত ব্যক্তির সাথে মেলামেশা না করা এই ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি কমানোর সর্বোত্তম উপায়। কোয়ারেন্টাইনের দিনগুলো বেশ ভালোই কাটছে নিজের পরিবারের সাথে। বাসায় থাকার পাশাপাশি পড়ালেখা গুলো একটু একটু করে নোট করে রাখছি যাতে করে করে ইউনিভার্সিটি খোলার পরে পরীক্ষা নিয়ে সমস্যায় পড়তে না হয়। এই সময়ে ঘরে বসে সময় নষ্ট না করে নিজের ঘাটতি গুলো খুঁজে বের করুন। ছোট ছোট স্কিল তৈরি করুন। পরিবারের কাজে বাবা-মাকে সাহায্য সহযোগিতা করুন। যে যে ধর্মের অনুসারী সেই ধৰ্ম পালন করুন। আর সৃষ্টিকর্তার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করুন।
আশা করছি আমাদের সবার এই গৃহবন্দী জীবন আমাদেরকে একটি সুস্থ পৃথিবী উপহার দিবে। মহান আল্লাহ তা’আলা সকলকে সুস্থ রাখুন। বলছিলেন ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভ’র শিক্ষার্থী আফসানা নাসরীন

নামঃ আফসানা নাসরীন
ডিপার্টমেন্টঃ ফার্মেসি
ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভ (ইউডা)।

ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী জুনায়েদ উদ্দিন বলেন, ‘আজ করোনার ছোবলে সারা বিশ্ব গৃহবন্দি। হোম কোয়ারেন্টাইনে আছে বিশ্বের প্রায় দুই তৃতীয়াংশ মানুষ। হোম কোয়ারেন্টাইনের সময়গুলোতে আমি আমার পরিবারের সাথে সময় কাটাচ্ছি। আমরা যারা ছাত্র আছি তারা নিজেদের দুর্বলতা দূর করার জন্য এই রকম বিরাট সুযোগ আর কখনোই পাবো না।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা যারা ইংরাজি, গণিত, সাধারণ জ্ঞান, ইন্টারনেট ইত্যাদি বিষয়ে দুর্বল, তারা সেগুলো একটু চর্চা করে নিতে পারি। পাশাপাশি, আমরা আমাদের ব্যবহারিক জীবনের কিছু কাজ শিখে নিতে পারি। যেমন, রান্না করা,ঘর পরিষ্কার করা, বাজার করা, বিভিন্ন জিনিষ ঠিক করা ইত্যাদি। এক কথায় নিজের কাজ নিজে করার মানুষিকতা গড়ে তুলতে পারি। আমি ইতিমধ্যে মুক্তপাঠের ওয়েবসাইট থেকে মোট ১২টি অনলাইন ফ্রি কোর্স করেছি। আবার, যুব উন্নয়ন বোর্ডের কাছ থেকে কোয়েল ও গরু পালনের উপর ২টি অনলাইন কোর্স করছি। এরপর আমার ইচ্ছে গুগল এর ডিজিটাল মার্কেটিং ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এর অন্তর্গত করোনাভাইরাস প্রতিরোধ এর উপর অনলাইন কোর্স গুলো করে নিজের কিছু স্কিল বৃদ্ধি করে নিচ্ছি। এর পাশাপাশি এক্সিলেন্স বাংলাদেশ নামক কর্পোরেট ফার্মে আমি ক্যাম্পাস এম্বাসেডর হিসেবে নিয়োজিত আছি। তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন শিক্ষা মূলক লাইভ প্রোগ্রাম প্রতি দিন সম্প্রচার করছে যা, থেকে অনেক কিছুই শিখছি। যারা ছাত্র আছেন, এইসময় বিভিন্ন সংস্থা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্রি অনলাইন কোর্স করে নিতে পারেন। আমাদের সকলে দেশের দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে এখন হোম কোয়ারেন্টাইনের নিয়মগুলো যথাযথভাবে পালন করা উচিত এবং আমাদের সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে যারা নিয়োজিত আছেন তাদের মধ্যে ডাক্তার ও নার্স অন্যতম। এর পাশাপাশি পুলিশ, সেনাবাহিনী এবং বিভিন্ন জরুরী সেবায় নিয়োজিত মানুষ কাজ করে যাচ্ছেন, তাদের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধাশীল আচরণ করা উচিত।’

মোঃ জুনায়েদ উদ্দিন
ব্যাচেলর অব বিজনেস এডমিনিষ্ট্রেশন,
ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি।

Share this...
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস ও মতামত কলামে লিখতে পারেন আপনিও – pbn.news24@gmail.com ইমেইল করুন  

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ