ঢাকা, ১৩ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
shodagor.com

ক্যাম্পাসের তরুণ উদ্যেক্তা

প্রকাশিত: সোমবার, নভেম্বর ২৩, ২০২০ ৪:১৪ অপরাহ্ণ  

| পিবিএন ডেস্ক

আব্দুল্লাহ আল নোমান, নোবিপ্রবি প্রতিনিধি:
ছাত্রজীবনে সবাই পড়ালেখা নিয়ে চিন্তাভাবনা করে।তবে তাদের মাঝে কিন্তু অনেকেই ব্যাতিক্রম থাকে।যারা ছাত্রজীবন থেকেই তাদের ভবিষ্যতের উদ্দ্যেশ্যে সংগ্রাম করে যায়।যারা হলো ক্যাম্পাস উদ্যেক্তা। আমাদের দেশ তৃতীয় বিশ্বের একটি স্বল্পোন্নত দেশ। আর জাতি হিসাবেও আমরা উন্নয়নশীল। তাইতো পৃথীবিতে যে কটি দেশে বেকার সমস্যা সবচেয়ে চরমে তারমধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। প্রতি বছর অসংখ্য তরুন-তরুনী উচ্চশিক্ষা শেষ করে কর্মসংস্থান না করতে পেরে দিশেহারা হয়ে পড়ছে। যেখানে বেশ বড় অংকের তরুণ-তরুণী নিজেদের সংসারের হাল ধরতে নাজেহাল অবস্থা পার করছেন সেখানে কিছু তরুণ সমাজে উজ্জ্বল দৃষ্ঠান্ত স্থাপন করেছেন। তেমনি শিক্ষার্থী হিসেবে অনেকেই তাদের নিজ উদ্যোগে হয়ে যাচ্ছে এক একটা বড় উদ্যেক্তা। বর্তমানে করোনার থাবায় প্রায় ৮ মাস ক্যাম্পাস বন্ধ।কিন্তু থেমে নেই উদ্যেক্তারা।এই শীতকালীন মৌসুমেও তারা বন্ধ ক্যাম্পাসের তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।পৌঁছে দিচ্ছেন তাদের পন্য সকল শিক্ষার্থীদের মাঝে।তাদের উদ্যেক্তা হওয়ার পিছনে যে কারণ সেই গল্পগুলোই তাদের মুখেই শুনি।

রাসেদ রহমানঃশিক্ষার্থী,নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

আমরা (আমি সহ আমার আরও দুই বন্ধু) ক্যাম্পাসে শীত কালীন প্রোডাক্ট, হুডি নিয়ে কাজ করছি। আমরা মুলত যারা নোয়াখালী থেকে প্রোডাক্ট নিবে বা নিচ্ছে, তাদের নোয়াখালী সুপার মার্কেট এর সামনে থেকে প্রোডাক্ট নিয়ে যেতে বলেছি। আর যারা নোয়াখালী এর বাইরে আছেন, তাদের কে কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে আমরা প্রোডাক্ট ডেলিভারি দিচ্ছি। এবারের এই ব্যবসায়িক প্রজেক্টটা আমাকে ভবিষ্যতে আরও বড় প্রজেক্ট নিয়া কাজ করার জন্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্র যেমন ম্যানেজমেন্ট, সেলস, প্রোডাকশন, ডিমান্ড ইত্যাদি অনেক কিছু শিখতে সাহায্য করছে।বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের ১ম থেকেই আমার ইচ্ছা ছিল, হুডি নিয়ে কাজ করবো। এছাড়া বন্ধু বান্ধব সহ বড় ভাই আপু দের দেখতাম যে, হুডির কাপড় সহ আরও অনেক খুটিনাটি বিষয়ে অনেক কমপ্লেইন করে। সেই কথা মাথায় রেখেই মুলত এই প্রজেক্টে নেমেছি, আমরা চাচ্ছি যে, কেউ যাতে কোন প্রকার কমপ্লেইন করতে না পারে যে ঐ রকম সার্ভিস দিতে। দেশে যেভাবে চাকরি এর অভাব চলছে তাতে আমি মনে করি, সবাই যদি নিজের পরিসরে থেকে কিছু করার চেষ্টা করে তাহলে যেমন চাকরীর পিছনেও ওতো ছুটতে হবে না এবং আপনার মাধ্যমেই হয়তো আরও অনেকের চাকরি ক্ষেত্র তৈরী হবে।

shodagor.com

কাউসারঃশিক্ষার্থী,নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

করোনাকালীন এই সময়ে অনেক দিন ধরেই কিছু একটা করার চিন্তা বারবার মাথায় ঘুরছিল। তো হঠাৎ করেই চিন্তা করলাম শীত যেহেতু চলে আসছে আমরা শীতকালীন হুডি নিয়ে কিছু একটা করতে পারি।এই বছর করোনার কারণে সবাই আলাদা থাকলেও যাতে সবাই ভার্সিটির হুডি গায়ে দিতে পারে তার জন্য আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা। নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এর যে সকল ছাত্র এখন নোয়াখালীর বাইরে রয়েছে আমরা তাদের কে কুরিয়ার সার্ভিসে আমাদের হুডি গুলো পৌছে দেয়ার ব্যবস্থা করেছি। আমরা চেষ্টা করছি যাতে আমাদের প্রোডাক্ট এর সর্বোচ্চ গুণগত মান বজায় থাকে।

মূলত এই প্রথম বারের মত এই কাজে নেমে ভাল কিছু অভিজ্ঞতা সঞ্চার করেছি। কিভাবে মানুষের কাছে নিজের প্রোডাক্ট গুলো কে ভালভাবে উপস্থাপন করা যায়, কিভাবে সবার সাথে যোগাযোগ স্থাপন করা যায় এমন ভালো,খারাপ অসংখ্য অভিজ্ঞতা হচ্ছে। তবে খারাপ গুলো থেকে শিক্ষা নিয়ে আর ভাল অভিজ্ঞতা থেকে অনুপ্রেরণা নিয়ে সামনে এগিয়ে চলতে চাই।আমি মনে করি একজন ছাত্র হিসেবে এই সকল অভিজ্ঞতা আমাদের কে অনেক বেশি উপকৃত করবে। আমাদের চিন্তাধারা কে প্রসারিত করে আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে।আর একজন উদ্যেক্তা হিসেবে আমি বলব,ছাত্রজীবনে ভিন্ন কিছু করতে হলে এরকম অবশ্যই কিছু করা দরকার।যাতে আমরা উপকৃত হয়।

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস ও মতামত কলামে লিখতে পারেন আপনিও – [email protected] ইমেইল করুন  

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ