১০ই আগস্ট, ২০২০ ইং, সোমবার

নাটোর সড়ক ও জনপথ বিভাগের সীমাহীন দুর্নীতি; বিশেষ ধারাবাহিক প্রতিবেদনের প্রথম পর্ব

আপডেট: জুলাই ১৬, ২০২০

| পিবিএন রিপোর্ট

নাটোর-ঢাকা মহাসড়ক বছরের পর বছর পরে আছে সংস্কারবিহীন। নাটোর-ঢাকা মহাসড়কের হয়বতপুরে সড়কের এক লেন বেশ কয়েক বছর ধরে সংস্কারের অভাবে গাড়ি চলাচল বন্ধ রয়েছে। ভোগান্তিতে রয়েছে গাড়িচালক ও স্থানীয়রা।

সড়ক বিভাগের নিরবচ্ছিন্ন দুর্নীতি ও কাজের নির্মাণ ত্রুটি,ও নিম্নমানের কাজ হওয়ার কারনে বারবার এমনটি হচ্ছে বলে উল্লেখ করেছেন সংশ্লিষ্টরা। বিশেষ করে নাটোরের পুলিশ লাইনসসের সামনে, হয়বতপুরে, আহম্মেদপুর ব্রিজ, আহম্মেদপুর বাজার এবং বনপাড়া বাজারে ভোগান্তি চরমে।

স্থানীয় ট্রাক ড্রাইভার রাজা জানান, এখানে মাঝেমধ্যেই ভুলবশত খারাপ লেনে গাড়ি ঢুকে পড়ে ফলে দুর্ঘটনা তৈরি হয়। মাঝেমধ্যে ঘটছে এরকম ছোট বড় দুর্ঘটনা। বেশ কয়েকবার সংস্কারের পর আর সংস্কার না করে কাজ বন্ধ রেখেছে সড়ক কর্তৃপক্ষ।

কবে কাজ হবে তা কেউ জানে না। এদিকে বনপাড়া বাজারে ব্লাকস্পটের ভাঙ্গায় গতমাসে গাড়ি উল্টে মারাগেলো ২ টি তাজা প্রাণ। এমন ঘটছে অহরহ, কিন্তু এসব দেখেও যেন না দেখার ভান করে নাটোর সড়ক বিভাগ।

২০১৬ সালে নাটোরে ৭টি ব্লাকস্পট নির্ধারণ করে ৫কোটি টাকা ব্যায়ে রাস্তা প্রশ্বস্ত করার কাজ শুরু হয়। এসব ব্লাকস্পট গুলোতে বাজার কেন্দ্রিক সংযোগ সড়ক গুলোকে বেশী গুরুত্ব দেয় সড়ক ও জনপথ বিভাগ। স্পটগুলোতে মুল সড়ক এবং পাশ্ববর্তী সংযোগ সড়ক গুলোতে ১০০ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ১.৫ মিটার প্রস্থে রাস্তা প্রশস্ত করা হয়।

পরে আরো কয়েক কোটি টাকা বরাদ্দ বাড়িয়ে ডিভাইডার দিয়ে রাস্তা প্রশস্ত করা হয়। এ সময় বিভিন্ন মিডিয়া বার বার কাজের নিন্মমান নিয়ে নিউজ করলেও কথা কানে নেয়নি সড়ক বিভাগ। বার কয়েক ওইসব স্থানে প্রকৌশলী এসে তদন্ত করেছে বটে কিন্তু বাংলাদেশের দুর্ণিতীগ্রস্থ এই বিভাগ জনভোগান্তিকেই বেশি গুরুত্ত্ব দিয়েছে। কারন জনগন চিরজীবন ভোগান্তী পেয়ে এসেছে ওরা আরো পাক তাই তারা তাদের মতো কাজ করেছে।

তাইতো কাজ শেষ হবার বছর ঘুরতে না ঘুরতেই ভেঙ্গে যায় সব গুলো স্পট। এখন ব্ল্যাকস্পট নামকরণ স্বার্থক হয়েছে। কারন আগে দুর্ঘটনা না ঘটলেও এখন নিয়মিত ঘটে। আগে সকল সময় রাস্তা ভাঙ্গা না থাকলেও এখন বছরের পর বছর মহাসড়কে ইট বিছিয়ে চলছে পরিবহন। এই তো আমার সোনার বাংলাদেশ। লুটে পুটে খাচ্ছে নিচ থেকে উপর পর্যন্ত সবাই। দেখবার যেন কেউ নেই।

প্রিয় পাঠক, আমরা জানাতে চাই আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়ে যাওয়া সেই সব ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এবং সরকারি কর্মকর্তাদের কথা। নাটোর সড়ক ও জনপথ বিভাগের সীমাহীন দুর্নীতির তথ্য নিয়ে বিস্তারিত, বিশেষ ধারবাহিক প্রতিবেদনের দ্বিতীয় পর্ব দেখতে, চোখ রাখুন পিবিএন২৪ এ।