ঢাকা, ৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
shodagor.com

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ, ঘরবাড়ীতে আগুন

প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৮, ২০২১ ৬:৩৫ অপরাহ্ণ  

| পিবিএন ডেস্ক

মোঃ মারুফ হোসেন, নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় জুয়েল (২৫) নামে যুবককে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী নিহতের লাশ নিয়ে এশিয়ান হাইওয়ে সড়ক অবরোধসহ হত্যাকারী তোতা মিয়ার ৪টি বসত ঘরে অগ্নিসংযোগ করেছে।

৮ই এপ্রিল বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় বন্দর উপজেলার মদনপুর ইউনিয়নের আন্দিরপাড়স্থ হেদায়েতপাড়া এলাকায় এ অগ্নিসংযোগের ঘটনাটি ঘটে। রাস্তা অবরোধ ও অগ্নিসংযোগের খবর পেয়ে বন্দর থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ নিয়ে মদনপুরের আন্দিরপাড় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত থাকার অপরাধে পুলিশ মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক মেম্বার শাহাজালাল মিয়ার স্ত্রী শাহানাজ বেগম (৩৮) ও তার ছেলে ইয়াছিনকে (১৭) আটক করেছে।

বৃহস্পতিবার বাদ মাগরিব মদনপুর বড় সাহেব বাড়ী জামে মসজিদের সামনে নিহত জুয়েলের জানাযা শেষে মদনপুর কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করে তার আত্মীয় স্বজনরা।

shodagor.com

জানা গেছে, মাদক ও ড্রেজার ব্যবসা এবং এলাকায় একক আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বুধবার রাত ১০টায় মদনপুরের আন্দিরপার এলাকায় শাইরা গার্ডেন রিসোর্টের প্রবেশ পথের সড়কে জুয়েল এর উপর হামলা চালায় প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসী আলিম গং। ওই সময় হত্যাকারী আলিমসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা জুয়েলকে কুপিয়ে একহাত বিচ্ছিন্ন করে নৃশংসভাবে হত্যা করে। নিহত যুবক জুয়েল বন্দর উপজেলার মদনপুর আন্দিরপারস্থ হেদায়েতপারা এলাকার আনোয়ার হোসেন মিয়ার ছেলে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকাবাসী জানান, একই এলাকার তোতা মিয়ার ছোট ছেলে আলিমকে কিছু দিন পূর্বে নিহত জুয়েলের বড় ভাই সোহেল মারধর করেছিল। পূর্বের মারামারির ঘটনাকে কেন্দ্র করে গরু জবাই করার ছুরি, চাপাতি দিয়ে এলোপাথারি ভাবে কুপিয়ে দেহ থেকে হাত বিচ্ছিন্ন করে নৃশংস ভাবে তোতা মিয়ার দুই ছেলে আলিম ও সেলিমসহ তার সহযোগী-৮-১০জন মিলে এ হত্যার ঘটনা ঘটিয়েছে বলে গ্রামবাসী জানান। এ হত্যাকান্ডের খবর পেয়ে নিহত জুয়েলের লোকেরা হত্যাকারীদের বাড়ি ঘরে হামলা, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। সংবাদ পেয়ে বন্দর থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা ও ধামগড় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর আজিজুল দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

বন্দর থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, স্থানীয় হাসপাতাল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ হত্যাকান্ডের বিষয়ে খোজখবর নিচ্ছেন। ইতোমধ্যে ২জনকে আটক করা হয়েছে। তবে প্রকৃত খুনিদের চিহিৃত করে গ্রেপ্তারের আইনের আওতায় আনা হবে। এ ব্যাপারে বন্দর থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস ও মতামত কলামে লিখতে পারেন আপনিও – pbn.news24@gmail.com ইমেইল করুন  

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ