ঢাকা, ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

হাবিপ্রবি’র আবাসিক হলে চুরি।

প্রকাশিত: শুক্রবার, অক্টোবর ১৬, ২০২০ ১১:৪৫ অপরাহ্ণ  

| পিবিএন ডেস্ক

আনোয়ারুল ইসলাম, দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি: করোনার বন্ধে দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি)’র আবাসিক ডরমেটরী-২ হলের গণরুম থেকে অনেক শিক্ষার্থীর নানা রকমের মূল্যবান জিনিস চুরি হয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

এ বিষয়ে ডেভলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের ১৯ ব্যাচের শিক্ষার্থী মোঃ তানভীর আহমেদ তার হলের গণরুমে গিয়ে দেখেন, তার অনেক জিনিস ইতিমধ্যে হারিয়ে গেছে।

এ বিষয়ে তার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন , “করোনার বন্ধে হল সিলগালা করার মাত্র ১ ঘন্টা পর এসে হলে ঢুকতে পারেননি কয়েকজন শিক্ষার্থী, হল প্রশাসন বলেছিলো হল সিলগালা করা হয়েছে এখন আর কিছুই করা সম্ভব না। এরপর করোনার প্রাদুর্ভাব কমলে কিছু বন্ধু হলে আসে এবং ট্রাঙ্ক, টেবিলের ড্রয়ার ভাঙ্গা দেখতে পান ও বাঁকিদের জানান।

আজ যখন ক্যাম্পাসে আসি এবং হলে ঢুকি তখন দেখি নিজের বেডের উপরে তোষক, লেপ আর বালিশ ছাড়া কিছুরই অস্তিত্ব পাইনি। লাগেজ, ব্যাগ, বই, জামা জুতা থেকে রেকর্ডের সরঞ্জাম, মাইক্রোফোন সহ সখের সব কিছুই খোয়া গেছে এমনকি ড্রয়ারের মধ্যে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইডি কার্ড ও চুরি হয়ে গেছে “। তিনি আরো বলেন, প্রায় ৯৮% ট্রাঙ্ক ড্র‍্যায়ার ও ব্যাগের তালা ভাঙ্গা, নয়তো উধাও। অনেকে করোনার বন্ধের ছুটি আন্দাজ করতে পারেনি তারা সব কিছু রেখে গিয়েছিলো, অনেকের মূল্যবান সামগ্রী ছিলো তার কিছুই আজ নেই। আমার পাশের বেডেই থাকে সুফিয়ান, বিকেএসপি থেকে উঠে আসা উদীয়মান শুটার, শুটিংয়ে পুরষ্কার স্বরূপ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র থেকে গোল্ড মেডেলও পেয়েছিলো সে। তার ট্রাঙ্ক থেকে সব খোয়া গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ডরমেটরী-২ হলের, হল সুপার অধ্যাপক ড. মোঃ গোলাম রব্বানি বলেন, ” চুরির অভিযোগটি আমি শুনেছি। বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। আমি আগামী রবিবার হলে গিয়ে সরেজমিন ঘুরে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে দিবো। তবে মুঠোফোনের মাধ্যমে যতটুকু জানতে পেরেছি বিগত সাত মাসে বিভিন্ন শিক্ষার্থী বিভিন্ন সময় তাদের মূল্যবান জিনিসপত্র নিতে হলে এসেছিলেন। তাছাড়া গণরুমে একসাথে অনেক শিক্ষার্থী থাকায় আমাদের পক্ষে জানা সম্ভব নয় কোন জিনিস কোন শিক্ষার্থীর। তবে বিগত সাত মাসে যারা হলে প্রবেশ করেছে তাদের সকলেরই ডকুমেন্ট আমাদের কাছে আছে। আজকের পর থেকে গণরুমে আপাতত সকল শিক্ষার্থী প্রবেশ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে “।

এ বিষয়ে তিনি আরো বলেন,” কোনো শিক্ষার্থী হলে প্রবেশ করতে চাইলে তাদের মোট ৫ মিনিট সময় দেয়া হতো। এছাড়া আমাদের হলের অফিসারসহ একজন নিরাপত্তাকর্মী শিক্ষার্থীর সাথে রুমের ভেতরে প্রবেশ করতেন। আবার সাম্প্রতিক সময়ে অনেক শিক্ষার্থী মেসে উঠেছে । একজন শিক্ষার্থীর নাম করে অন্য শিক্ষার্থী এখান থেকে জিনিসপত্র নিয়ে গেলেও যেতে পারে। তবে আপাতত নির্দিষ্ট করে কোন কিছুই বলতে পারছি না তদন্ত ছাড়া। তদন্ত কমিটির রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো “

Share this...
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস ও মতামত কলামে লিখতে পারেন আপনিও – pbn.news24@gmail.com ইমেইল করুন  

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ