লকডাউনে চাঁপাইনবাবগঞ্জে আম ব্যবসার কী হবে? - PBN24PBN24
ঢাকা, ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
shodagor.com

লকডাউনে চাঁপাইনবাবগঞ্জে আম ব্যবসার কী হবে?

প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, মে ২৭, ২০২১ ৭:৪২ অপরাহ্ণ  

| পিবিএন ডেস্ক

চাঁপাইনবাবগঞ্জে হু হু করে বাড়ছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণ। সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়তে থাকায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশে মঙ্গলবার থেকে জেলায় কঠোর লকডাউন দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। কঠোর লকডাউনের আওতায় জেলায় প্রবেশ ও চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে জেলার আমচাষীরা। তবে পরিবহনের ক্ষেত্রে কঠোর নিষেধাজ্ঞা থাকলেও এর কোন প্রভাব পড়বে না আম বাজারে। স্বাভাবিক থাকবে আমবাজার, পরিবহন ও বাজারজাতকরণের সকল কার্যক্রম। বুধবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ আঞ্চলিক উদ্যানতত্ত্ব গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. হরিদাস চন্দ্র মোহন্ত বিবিসিকে জানান, এই জেলায় প্রতিবছর প্রায় আড়াই লক্ষ মেট্রিক টন আম উৎপাদন হয় যার বাজার মূল্য ১২শ থেকে ১৪শ কোটি টাকা।

shodagor.com

“একই জাতের আম অন্য জেলাতেও হয়। কিন্তু চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমের আলাদা কিছু বৈশিষ্ট্য হয়। এখানে ফলন যেমন বেশি হয় তেমনি স্বাদও বেশি।”

তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার আম ব্যবসা যদি ক্ষতিগ্রস্ত হয় তাহলে মানুষের জীবন-জীবিকার উপর মারাত্মক প্রভাব পড়বে।

এদিকে গুটি ও গোপালভোগ জাতের আম পাড়া হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। সপ্তাহ খানেকের মধ্যেই শুরু হবে ক্ষিরসাপাত, হিমসাগর, মোহনভোগ, খুদি ক্ষিরসা, লক্ষ্মণভোগ, বোম্বাই জাতের আম পাড়া। সে লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে জেলার আমচাষী, ব্যবসায়ী, আড়তদার ও রফতানিকারকরা। তবে

হঠাৎ করেই জেলাব্যাপী কঠোর লকডাউন ঘোষণায় কৃষকদের মনে নানা শঙ্কা ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। জেলা প্রশাসনের সঠিক বার্তা না পৌঁছানো ও মাঠ পর্যায়ে পুলিশের তৎপরতা দেখেই তাদের মনে এই শঙ্কা বলে মনে করেন সচেতন মহল।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ জানান, কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে কাজ করছে জেলা প্রশাসন। তবে জেলার প্রধান অর্থকারী ফল আমের বাজার চলমান রাখতে বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আমের বাজারজাতকরণের লক্ষ্যে পরিবহনে দেয়া হয়েছে ছাড়। রাখা হয়েছে নিষেধাজ্ঞার আওতার বাইরে। সরাসরি বাগান থেকে ট্রাকে আম পরিবহন করা যাবে। এছাড়াও অনলাইনে অর্ডার গ্রহণ করে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে আম ক্রয়-বিক্রয় কার্যক্রম চলমান থাকবে। তিনি আরও জানান, ইউনিয়ন পর্যায়ে হাট বাসানোর জন্য উপজেলা প্রশাসনকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এখন যেসব বাজার রয়েছে সেগুলোর আকার বাড়ানোরও পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

এর আগে সোমবার (২৪ মে) দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ সংবাদ সম্মেলন এই কঠোর লকডাউনের ঘোষণা দেন। চাঁপাইনবাবগঞ্জের পাঁচ উপজেলায় এবছর প্রায় ৩৫ হাজার হেক্টর জমিতে আমবাগান রয়েছে। এসব আম বাগানের প্রায় ২৭ লাখ গাছ থেকে আড়াই লক্ষ মেট্রিক টন আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে কৃষি বিভাগ।

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস ও মতামত কলামে লিখতে পারেন আপনিও – pbn.news24@gmail.com ইমেইল করুন  

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ