বুবলী বেশিরভাগ সময় পথেই বেশি ঘুমান - PBN24PBN24
ঢাকা, ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
shodagor.com

বুবলী বেশিরভাগ সময় পথেই বেশি ঘুমান

প্রকাশিত: বুধবার, জুন ৩০, ২০২১ ৬:১৩ পূর্বাহ্ণ  

| পিবিএন ডেস্ক

আজ উত্তরা তো কাল সাভার। সকালে এফডিসি তো বিকেলে কেরানীগঞ্জ বা সাভার। মাসখানেক হয় এই তাঁর প্রাত্যহিক রুটিন। কয়েক মাস আড়ালে থাকার পর যেন গা ঝাড়া দিয়ে উঠেছেন শবনম বুবলী। একসঙ্গে নতুন দুটি চলচ্চিত্রের শুটিংয়ের ফাঁকে সেরে ফেলেছেন দুটি বিজ্ঞাপনচিত্র। চলছে ফটোশুটের কাজ। আছে নতুন সিনেমা নিয়ে পরিচালকের সঙ্গে কথাবার্তা। বুবলী জানালেন, অভিনয়জীবনে এত ব্যস্ত সময় আগে কখনো আসেনি।

তপু খানের লিডার: আমিই বাংলাদেশ এবং মোহাম্মদ ইকবালের রিভেঞ্জ সিনেমা দুটির শুটিং একসঙ্গে করছেন বুবলী। জানালেন, শুরুতে পরিকল্পনা ছিল, একটির পর আরেকটির শুটিং হবে। কিন্তু করোনা সব এলোমেলো করে দিয়েছে।

বুবলী বলেন, ‘উত্তরার বাসা থেকে কোনো কোনো দিন একদম ভোরে বের হয়ে যাই। প্রায় দিনই ফিরতে রাত আট-নয়টা বেজে যায়। দুই সিনেমার শুটিং যেদিন থাকে, সেদিন তো ফিরতে ফিরতে মাঝরাত। কখনো কখনো ভোরও হয়ে যায়। মাত্র দু-তিন ঘণ্টা ঘুমিয়েই আবার দে ছুট।’

shodagor.com

২০১৬ সালে বসগিরি দিয়ে সংবাদপাঠিকা শবনম বুবলীর ঢালিউড–যাত্রা শুরু। এই সিনেমায় তাঁর নায়ক ছিলেন শাকিব খান। সেই শুরু, টানা ১১টি সিনেমায় জুটি বেঁধেছেন তাঁরা। গত বছর কাজী হায়াতের বীর সিনেমার আগে খবর রটে, শাকিব খানকে আর বুবলীর সঙ্গে দেখা যাবে না। যদিও শেষ পর্যন্ত বীর ছবিতে বুবলীকেই দেখা যায়।

কিন্তু ক্যাসিনো ছবিতে রটনা ঘটনাই হয়ে যায়। শাকিবের বাইরে অন্য কারও সঙ্গে জুটি বাঁধেন বুবলী। তাঁর নায়ক হন নিরব। অন্যদিকে নবাব এলএলবিতে শাকিবের নায়িকা মাহিয়া মাহি। এই দুই ঘটনায় হতাশ হন শাকিব-বুবলী জুটির ভক্তরা। দীর্ঘদিনের এ জুটি তাহলে ভেঙেই গেল! এরপরই হঠাৎ লাপাত্তা হয়ে যান বুবলী।

৯ মাস তাঁর কোনো খোঁজই পাওয়া যায়নি। এ সময় তাঁকে নিয়ে অনেক কথাই শোনা যায়। বছরের শুরুতে নতুন ছবির ঘোষণা দিয়ে আবার প্রকাশ্যে আসেন বুবলী। চোখ নামের সেই ছবির নায়ক রোশান ও নিরব।

শাকিব-বুবলীর ভক্তরা যখন ভাবতে শুরু করেন, এই জুটি আর জোড়া লাগবে না, তখনই এল ঘোষণা। লিডার: আমিই বাংলাদেশ নামের নতুন ছবিতে আবারও একজোট শাকিব-বুবলী। বুবলী বলেন, ‘শাকিব খান তো আমাদের দেশের সুপারস্টার। শুরু থেকে তিনি অভিনয়ের ব্যাপারে নানাভাবে সহযোগিতা করেছেন। এখনো অনেক খুঁটিনাটি বিষয় শিখিয়ে দেন।’

লিডার: আমিই বাংলাদেশ ছবির ফার্স্ট লুকে তিন রূপে পাওয়া গেছে বুবলীকে। সাধারণ সালোয়ার-কামিজ, পশ্চিমা পোশাক ও শাড়িতে। কোনজনকে বুবলীর ভালো লেগেছে বেশি, জানতে চাইলে বলেন, ‘শাড়ি পরা বুবলীই আমার বেশি পছন্দ। অন্য দুজন ভীষণ রাফ অ্যান্ড টাফ।’ অন্যদিকে রিভেঞ্জ সিনেমায় তিনি পুলিশ কর্মকর্তা। এমন চরিত্রে এবারই প্রথম অভিনয়। যদিও ছোটবেলা থেকে পুলিশ কর্মকর্তা দেখেই বড় হয়েছেন তিনি, তাঁর বাবাও ছিলেন পুলিশ।

ছোটবেলা থেকে পুলিশ কর্মকর্তা দেখেই বড় হয়েছেন বুবলী, তাঁর বাবাও ছিলেন পুলিশ

বুবলীকে আগেও একবার দুই সিনেমার শুটিং সমানতালে করতে হয়েছিল। তবে এবার দুটি সিনেমার চরিত্রে ঢোকার ক্ষেত্রে সমস্যা না হলেও রাস্তার জ্যাম তাঁকে বিরক্ত করে।

বললেন, ‘এই তো, শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এফডিসিতে শুটিং করে সাভার ছুটি। পথে সবচেয়ে বেশি কষ্ট দিয়েছে জ্যাম। ৩০ মিনিটের রাস্তা যেতে লেগেছে সাড়ে চার ঘণ্টা।

১২টার দিকে শুটিং শেষ করে বাসায় ফিরতে ফিরতে ঘড়ির কাঁটা ৩টা পার। কয়েক ঘণ্টা ঘুম, এরপর আবার সকাল আটটার আগে উত্তরা থেকে এফডিসি। শুটিংই জীবন। যাওয়া-আসার পথেই ঘুমানোর কাজ সারতে হয়। কাজ দুটি যেহেতু আনন্দ নিয়ে হচ্ছে, কষ্টটা কষ্ট মনে হচ্ছে না।’

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস ও মতামত কলামে লিখতে পারেন আপনিও – pbn.news24@gmail.com ইমেইল করুন  

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ